রবিবার, ৯ আগস্ট ২০২০, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭, রাত ৮:৩৯

প্রচ্ছদ আন্তর্জাতিক আর রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিতে পারবে না মালয়েশিয়া

আর রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিতে পারবে না মালয়েশিয়া

মালয়েশিয়া আরও রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিতে পারবে না। শুক্রবার এক বিবৃতিতে এমন মন্তব্য করেছেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মুহিদ্দিন ইয়াসিন।

তিনি বলেন, মিয়ানমার থেকে আসা আর কোনো রোহিঙ্গা মুসলিম শরণার্থীকে আশ্রয় দিতে পারবে না মালয়েশিয়া। ইতোমধ্যেই করোনা মহামারির কারণে বিভিন্ন দেশের অর্থনীতিতে ধস নেমেছে।

মালয়েশিয়াও এই পরিস্থিতিতে নিজেদের অর্থনৈতিক গতিশীলতা ধরে রাখার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সে কারণেই এই মুহূর্তে নতুন করে আর শরণার্থীর বোঝা মাথায় নিতে চায় না দেশটি

২০১৭ সালের আগস্টে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সামরিক অভিযান চালায় দেশটির সেনাবাহিনী। সে সময় অভিযানের নামের রোহিঙ্গাদের নির্বিচারে গুুলি করে হত্যা, বাড়ি-ঘরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া, রোহিঙ্গা নারীদের ধর্ষণ ও হত্যা করা হয়।

সেনাবাহিনীর নির্যাতন-নিপীড়ন থেকে বাঁচতে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় লাখ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী। সে সময় থেকেই উন্নত জীবনের আশায় বাংলাদেশের শরণার্থী ক্যাম্প থেকে পালিয়ে মুসলিম অধ্যুষিত মালয়েশিয়ায় পাড়ি দিচ্ছে বহু রোহিঙ্গা শরণার্থী।

তবে সাম্প্রতিক সময়ে রোহিঙ্গাদের বহনকারী বহু নৌকা ফিরিয়ে দিয়েছে মালয়েশিয়া। এমনকি শত শত রোহিঙ্গা শরণার্থীকে আটকও করা হয়েছে।

এদিকে, এসোসিয়েশন অব সাউথ ইস্ট এশিয়ান ন্যাশন্সের (আশিয়ান) অন্যান্য নেতাদের সঙ্গে এক টেলিকনফারেন্সে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা আর কোনো রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিতে পারব না কারণ আমাদের আর সক্ষমতা নেই।

এই মহামারি পরিস্থিতিতে এমনিতেই অর্থনীতি টিকিয়ে রাখতে হিমসিম খেতে হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে মালয়েশিয়া আর কোনো শরণার্থীকে আশ্রয় দিতে পারবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

এদিকে, প্রথম থেকেই মিয়ানমার দাবি করে আসছে যে, রোহিঙ্গারা তাদের দেশের নাগরিক নয়। বরং তারা দক্ষিণ এশিয়া থেকে আসা অবৈধ শরণার্থী। এমনকি রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো নিপীড়নের কথাও অস্বীকার করে আসছে মিয়ানমার।

মন্তব্য করুন:

আপনার মন্তব্য লিখুন!
এখানে আপনার নাম লিখুন

সর্বাধিক পঠিত